জুলুম প্রতিরোধ দিবস

ফন্ট সাইজ:

      উপরে বর্ণিত ছাত্র দলন ও দমননীতি, ছাত্র নির্যাতন ও গ্রেফতার এবং পুলিশ ও মুসলিম লীগের গুন্ডামীকে নীরবে সহ্য করা সম্ভব ছিল না। তাই আমরা পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগ সাংগঠনিক কমিটি ১৯৪৮ সালের ১০ই ডিসেম্বরের বৈঠকে ১৯৪৯ সালের ৮ই জানুয়ারী সমগ্র পূর্ব পাকিস্তান ব্যাপী শিক্ষায়তনগুলিতে ছাত্র ধর্মঘট, ছাত্র সভা অনুষ্ঠান মারফত ‘জুলুম প্রতিরোধ দিবস’ পালনের আহবান জানাই। যথারীতি ধর্মঘট পালনের পর বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা দলে দলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় জিমনেসিয়াম মাঠে জমায়েত হয়। পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগের আহবায়ক নঈমুদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে সভার কার্য শুরু হয়। জনাব শেখ মুজিবর রহমান, জনাব দবিরুল ইসলাম ও আমি বক্তৃতা করি। সরকারকে অবিলম্বে জুলুম বন্ধ করিবার আহবান জানাইয়া এক মাসের মধ্যে প্রয়োজনবোধে কর্মসূচী ঘোষণা করিবার প্রস্তাবও গৃহীত হয়। দিনাজপুরে অপ্রতিরোধ্য ছাত্র আন্দোলনের সূচনা হইলে পূর্ব পাকিস্তান ছাত্রলীগ নেতা দবিরুল ইসলাম, নূরুল হুদা কাদের বখ্স ও এম, আর, আখতার (মুকুল) কারারুদ্ধ হন। কারাগারে তাহাদিগকে দিনাজপুর কারারক্ষী বাহিনী বেদম প্রহার করে। শেখ মুজিবুর রহমান, আবদুল হামিদ চৌধুরী, আবদুল আজিজ দিনাজপুর পদার্পণ করিলে, জিলা প্রশাসক ৪৮ ঘন্টার মধ্যে তাহাদিগকে দিনাজপুর ত্যাগের নির্দেশ দেন।